রাজনীতিলিড নিউজ

নির্বাচন নিয়ে আমরা অন্য কারও পরামর্শ শুনব না : ওবায়দুল কাদের

79views

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিদেশিদের সঙ্গে কোনো উন্নয়ন বা দুই দেশের স্বার্থ-সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে আলোচনা করা যায়, কিন্তু বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে তাদের কোনো কথা শোনা হবে না। নির্বাচন নিয়ে আমরা অন্য কারও পরামর্শ শুনব না।

বৃহস্পতিবার (২ নভেম্বর) সকালে সচিবালয়ে মেট্রোরেলের আগারগাঁও থেকে মতিঝিল অংশের উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘বিএনপি এরই মধ্যে নিজেদের সন্ত্রাসী দল হিসেবে প্রমাণ করেছে। এমন একটি সন্ত্রাসী দলের সঙ্গে সংলাপ হতে পারে না। এটা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমিও বলছি।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বিএনপির আন্দোলন বিএনপি নিজেরাই পণ্ড করেছে। তারা নিজেদের জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন করেছে দুটি ঘটনায়- প্রধান বিচারপতির বাসভবনে হামলা চালিয়ে ও একজন পুলিশ সদস্যকে প্রকাশ্যে হত্যা করে। এরপর বিএনপির সঙ্গে আর জনমত থাকার কথা নয়। তাদের আন্দোলন তারাই পণ্ড করেছে, আমাদের কিছু করার নেই। পুলিশের সঙ্গে গণ্ডগোল তারা শুরু করেছে।’

নির্বাচন বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বাংলাদেশের সংবিধান যেভাবে বলছে, সেভাবেই আমাদের টার্ম শেষ হবে- জানুয়ারির ২৪ তারিখে। তার আগের ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন শেষ করতে হবে। ইসি নির্বাচন শিডিউল ঘোষণা করবে। এটা সরকারের বিষয় না- এটা নির্বাচন কমিশনের এখতিয়ার। এর বাইরে আমরা আগেও বলিনি, এখনো বলছি না।’

তিনি বলেন, ‘আমরা অন্য কোনো দেশের কথা শুনে পরামর্শ নেব? তারা (বিদেশিরা) কি নেয় আমাদের পরামর্শ? তারা যখন করে না, তাহলে আমরা কেন করব? উই হ্যাভ এ কনস্টিটিউশন। এসব মেনে আমাদের সংবিধানের ব্যত্যয় ঘটিয়েছি কি না, তা নিয়ে বন্ধুদের আপত্তি থাকতেই পারে, তারা বলতে পারেন। এটি একটি স্বাধীন নির্বাচন। ইসি ইলেকশন করবে। এ সময়ে সরকার রুটিনওয়ার্ক করবে শুধু। সরকারের মন্ত্রীরা সরকারি গাড়ি ও পতাকা ব্যবহার করতে পারবেন না। আমরা আমাদের নিয়ম অনুযায়ী এগিয়ে যাব।’

 

জাতিসংঘের বিবৃতি প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘জাতিসংঘের বাংলাদেশ নিয়ে মাথা ঘামানোর সময় নেই। সুদান ও গাজায় কী হচ্ছে? জাতিসংঘের কোনো কার্যকারিতা নেই বাস্তবে। তাদের আসল দায়িত্ব তারা তো পালন করতে পারছে না।’

ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘এমআরটি লাইন-৬ মেট্রোরেলের আগারগাঁও থেকে মতিঝিল পর্যন্ত অংশ ৪ নভেম্বর উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ২০৩০ সাল পর্যন্ত ছয়টি লাইনের কাজের পরিকল্পনা শুরু করেছিলাম। আগামী বছর কমলাপুর পর্যন্ত মেট্রোরেলের কাজ শেষ হবে।’ তিনি বলেন, মেট্রোরেলের আগারগাঁও থেকে মতিঝিল অংশ উদ্বোধনের দিন উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত বাণিজ্যিক চলাচল বন্ধ থাকবে। মতিঝিল থেকে আগারগাঁও অংশে শুধু মতিঝিল, বাংলাদেশ সচিবালয় ও ফার্মগেট স্টেশনে ট্রেন থামবে।

 

তথ্যসূত্র: খবরের কাগজ

Leave a Reply